• ঢাকা

  •  বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৫, ২০২৪

অপরাধ

পরকীয়ার কারণে খুন হয় বাবুল মিয়া, সিধলা বিল থেকে উদ্ধার মরদেহ

অনলাইন ডেস্ক:

 প্রকাশিত: ০৮:৫৪, ৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩

পরকীয়ার কারণে খুন হয় বাবুল মিয়া, সিধলা বিল থেকে উদ্ধার মরদেহ

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহের তারাকান্দায় পরকীয়া প্রেমের কারণে খুন হয়েছেন বাবুল মিয়া। এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করতে গিয়ে দুইজনকে গ্রেপ্তারের পর বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর সব তথ্য। পরে বাবুল মিয়ার অর্ধগলিত লাশ বিলের মাটির নীচ থেকে উদ্ধার করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মাসুম আহাম্মদ ভূঞা এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, গত ২৪ আগস্ট রাত ১১টার দিকে পানের আড়তের কর্মচারী বাবুল মিয়া তার পরকীয়া প্রেমিকা গার্মেন্টস কর্মী মোছাঃ সখিনা বেগমের (৩৫) সাথে কাশিগঞ্জ বাজার থেকে অজ্ঞাত একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায় মর্মে তারাকান্দা থানায় ৫ সেপ্টেম্বর একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। এই জিডির প্রেক্ষিতে উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহাদত আলম খান দ্রুত প্রাথমিক অনুসন্ধান শুরু করেন। 

তিনি জানান, অনুসন্ধানের সময় স্থানীয়ভাবে পাওয়া বিভিন্ন তথ্য ও তথ্যপ্রযুক্তি বিশ্লেষণ করে গত ৬ সেপ্টেম্বর সকাল ৯টায় গাজীপুর জেলার টঙ্গী পশ্চিম থানার বাদাম এলাকায় অভিযান চালিয়ে বাবুল মিয়ার নিখোঁজের ঘটনায় জড়িত আসামি মোছাঃ সখিনা বেগম ও তার স্বামী রাজমিস্ত্রি মোঃ শাহজাহান মিয়াকে (৪৫) আটক করে।

আটক দুইজন প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, সখিনা বেগমের সাথে বাবুল মিয়ার পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক ছিল। এই বিষয়টি সখিনার স্বামী মোঃ শাহজাহান মিয়া জানতে পেরে ক্ষিপ্ত হয়ে বাবুল মিয়াকে খুন করার জন্য সখিনা বেগমকে চাপ দেয় এবং খুনের পরিকল্পনা করে।

পরিকল্পনা অনুযায়ী গত ২৪ আগস্ট রাত অনুমান সাড়ে ১১টায় সখিনা বেগম ঢাকা থেকে এসে তারাকান্দা থানার বিসকা ইউনিয়নের খিচা নামক স্থানে অবস্থান করে। আর মোঃ শাহজাহান মিয়া নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা থানার মহিষবেড় এলাকায় অবস্থান করে। পরিকল্পনা মতো সখিনা বেগম তার প্রেমিক বাবুল মিয়াকে ফোনে ডেকে এনে মিথ্যা প্রলোভন দেখিয়ে রাত সাড়ে ১২টার দিকে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে রাত পৌণে দুইটায় পূর্বধলার মহিষবেড়ে তার বাড়ির কাছে একটি জঙ্গলে নিয়ে যায়। সেখানে মোঃ শাহজাহান মিয়া ও তার আত্মীয় অপর একজন সখিনা বেগমকে বাড়িতে পাঠিয়ে দিয়ে বাবুল মিয়াকে জয়নাল আবেদীন মাস্টারের পুকুরের দক্ষিণ পাশে নিয়ে গলা চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে লাশ গুম করতে সিদলা বিলের মাঝে সরকারি খাস পুকুরের দক্ষিণ পাড়ে মাটি নিচে পুতে রাখেন।

পরবর্তীতে আসামিদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গত ৬ সেপ্টেম্বর ফুলপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আতাহারুল ইসলাম তালুকদার, তারাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের ও পুলিশের অন্যান্য সদস্যরা মাটি খুড়ে বাবুল মিয়ার অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেন।

এই ঘটনায় তারাকান্দা থানায় মামলা দায়ের করে আসামিদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

সেপ্টেম্বর ৮, ২০২৩

এসবিডি/এবি/

মন্তব্য করুন: